সরে গেল রাশিয়া-ইউক্রেনের বন্ধুত্বের নিদর্শন

প্রাচ্যবাণী ডেস্ক
রাশিয়া-ইউক্রেনের বন্ধুত্বের নিদর্শন হিসেবে স্থাপিত ভাস্কর্যটি ভেঙে ফেলা হয়েছে। মঙ্গলবার ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে দাঁড়িয়ে থাকা ওই ভাস্কর্যটি ভেঙে ফেলার সময় উল্লাসে মেতে ওঠেন বাসিন্দারা।

বিবিসি জানিয়েছে, কিয়েভের কেন্দ্রে বিশাল স্মৃতিস্তম্ভটি সরানোর নির্দেশ দেন শহরের মেয়র ভিটারি ক্লিটসকো। ভাস্কর্যটি ভেঙে ফেলার দৃশ্য দেখার জন্য সেখানে স্থানীয় অনেক বাসিন্দা জড়ো হয়েছিলেন। ভাঙার পর এদের কেউ কেউ উল্লাসে মেতে ওঠেন।

মেয়র ভিটারি ক্লিটসকো বলেন, রাশিয়া লাখ লাখ ইউক্রেনীয়র স্বাভাবিক জীবন শেষ করে দিয়েছে এবং ইউরোপের শান্তি নষ্ট করেছে। তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের প্রতীক রাখা যায় না।

একসময় রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। দুই দেশের বন্ধুত্বের নিদর্শন হিসেবে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে দাঁড়িয়ে ছিল বিশাল এক ভাস্কর্যটি।

এদিকে ইউক্রেনের কয়েকটি শহরের ওপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের দাবি করেছে রাশিয়া। মঙ্গলবার রাতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির ভাষণেও বিষয়টির ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, দেশটির সামরিক বাহিনী ইউক্রেনের খেরসন অঞ্চল এবং খারকিভ, ঝাপরোজজিয়া ও মাইকোলাইভ শহরের ওপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার দাবি করেছেন যে, মারিউপোলের লড়াইও সমাপ্ত হয়েছে। রাশিয়ানদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়া এলাকাগুলোর মধ্যে খেরসনেই বেশি মানুষ বসবাস করে।

মঙ্গলবার রাতে দেওয়া ভাষণে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিও বলেছেন যে, অধিকৃত এলাকায় পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন রাশিয়ানরা।

Related Articles

Back to top button